1. masudkhan89@yahoo.com : admin :
  2. narsingdirawaaz1@gmail.com : Narsingdir Awaaz : Narsingdir Awaaz
শিরোনাম : :
বই মেলায় ‘ গোয়েন্দা নানু ও মজার গল্প ‘ আর ‘ সোনামনিদের মজার গল্প ‘ শিশুতোষবই দুটির বাজিমাত: নরসিংদী পিবিআই কর্তৃক অজ্ঞাতনামা লাশের পরিচয় সনাক্ত। সদর উপজেলা আনসার ভিডিপি কর্মকর্তার মাতৃ বিয়োগ মাধবদীতে ১৩ কেজি গাজাসহ আটক-১ মাধবদীতে যথাযোগ্য মর্যাদায় আন্তর্জাতিক মার্তৃভাষা দিবস পালিত অমর একুশে বই মেলা উপলক্ষে সাংবাদিকদের সাথে মত বিনিময় করেছেন জেলা প্রশাসন ভারতে কারাতে প্রতিযোগিতায় নরসিংদীর কৃতিত্ব ভগীরথপুর হাজী লাল মিয়া মোল্লা উচ্চ বিদ্যালয়ে বার্ষিক পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠিত নরসিংদী জেলার জন্ম ইতিহাস নরসিংদীতে র‌্যাবের তিন সদস্যকে কুপিয়ে আহত করে আসামী ছিনতাই

যৌনতা ছড়াচ্ছে মাধবদীর গ্রীন হলিডে পার্ক।। প্রতিকার চায় এলাকাবাসী

  • আপডেট সময়: সোমবার, ১৮ জুলাই, ২০২২
  • ১৪৪ জন দেখেছেন

মুহাম্মদ মুছা মিয়া, মাধবদী (নরসিংদী) প্রতিনিধিঃ নরসিংদীর মাধবদী পাথরপাড়ায় গ্রামের ভিতর ছোট্ট পরিসরে গড়ে উঠেছে মেহেরপাড়া ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান মামুনুর রশিদ সাজনের মালিকানাধীন গ্রীন হলিডে পার্ক। যেখান থেকে অশ্লীলতা ছড়ানোর অভিযোগ পাওয়া গেছে। ঈদুল আজহার পর থেকে প্রতিদিন উচ্চ সাউন্ডে অশ্লীল গান বাজিয়ে নারীদের নাচিয়ে দর্শক মাতানোর নামে যৌনতা ছড়াচ্ছে গ্রীন হলিডে পার্ক কর্তৃপক্ষ। খোলামেলা অর্ধউলঙ্গ নারীদের অশ্লীল নৃত্য দেখার জন্য সমবেত হচ্ছে হাজার হাজার তরুন-তরুনী। যা দেখে সমাজের যুবকদের মধ্যে দেখা দিয়েছে সামাজিক অবক্ষয়। ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যানের এমন কর্মকান্ডে হতবাক ও ভয়ে নির্বাক এলাকাবাসী। সকাল থেকে গভীর রাত পর্যন্ত উচ্চ সাউন্ডে গান বাজনার ফলে মুসল্লিদের নামাজ আদায় করতে, শিক্ষার্থীদের পড়ালেখা করতে সমস্যা হচ্ছে। গানের আউয়াজে ঘুমাতে পারছেনা সকল শ্রেণীপেশার মানুষ। হার্ট দূর্বল ও অসুস্থ রোগীদের জন্য এযেন এক জাহান্নামে পরিণত হয়েছে। গতকাল সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায় প্রায় রাত নয়টা পর্যন্ত দুইজন অর্ধউলঙ্গ নারী বিভিন্ন বাঝে গানের তালে তালে অশ্লীল নৃত্য করছে

এবিষয়ে পাথরপাড়া গ্রামের মোঃ সোয়াইব বলেন প্রথম অবস্থায় নরমালি এটা একটি পার্ক ছিল। আস্তে আস্তে এখানে অশ্লীলতা বারতাছে। প্রথমে শুধু বক্স বাজত এখন বিভিন্ন নর্তকী এনে নাচ গান করায়। যার কারণে পাথরপাড়া, দিঘীরপার অনেকগুলো মাদরাসা আছে এই শব্দের কারণে ছাত্রদের পড়ালেখার সমস্যা হইতাছে। সারাদিন বক্স বাজার কারণে বাচ্চারা ঘুমাতে পারেনা। রাতেও মানুষজন আওয়াজে ঘুমাতে পারেনা।

একই গ্রামের মোঃ বকুল বলেন গানবাজনার জন্য এলাকার মা বোনদের নামাজ পড়তে সমস্যা হচ্ছে। তিনি আরও বলেন এই পার্কের মালিক সাজন চেয়ারম্যান সাহেব আমাদের অভিভাবক আমি আবেদন করব আপনি যুব সমাজের দিকে লক্ষ করুন। এখানে নর্তকীদের এনে নাচগান করানো হচ্ছে আমাদের ছোট ছোট যারা স্কুল, কলেজ, মাদরাসায় গিয়ে পড়ালেখা শিখবে অথচ তারা আজ এখান থেকে কি শিখছে? একারণে যুব সমাজ আজ ধ্বংস হচ্ছে। পার্ক ভালো বিনোদন কেন্দ্র আমরাও চাই পার্ক থাকুক কিন্তু এমন একটা পরিবেশ করুন যেন আমাদের গ্রামের পরিবেশ ঠিক থাকে। আমাদের সমাজ নষ্ট করে যদি বিনোদন করেন তাহলে তো গ্রামের পরিবেশ নষ্ট হয়ে যাবে।
দিঘীরপার গ্রামের রাসেদুল হাসান জানান প্রতিনিয়ত মিউজিক ও নাচগানের মাধ্যমে যে অশ্লীল কাজ করা হচ্ছে আমাদের নামাজের সমস্যা হচ্ছে, বিভিন্ন ধরনের সমস্যা হচ্ছে এজন্য আমরা এর নিন্দা জ্ঞাপন করছি। যুবকরা এখানে গিয়ে বিভিন্ন বিষয়ে মারামারিতে লিপ্ত হচ্ছে এজন্য এটা যাতে নিয়ন্ত্রিত হয় এ ব্যাপারে পদক্ষেপ নেওয়ার জন্য আহ্বান জানাচ্ছি।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে এই সংক্রান্ত এক ব্যক্তির পোস্ট থেকে জানা যায়, একদিনের ব্যবধানে পোস্টটিতে কমেন্ট করেছেন ৫৭ জন। শেয়ার করেছেন ২২ জন। কমেন্টগুলোর ৯৫ শতাংশই এমন কর্মকান্ডের সমালোচনা করেছেন।
কমেন্ট বক্সে জুয়েল আরমান নামে একজন লিখেছেন এই পার্কের প্রধান আকর্ষণ হচ্ছে উলঙ্গ ৩য় লিঙ্গের মানুষের নাচ গান।
আল আমিন আলি নামে একজন লিখেছেন, নিশ্চিত দুঃখ প্রকাশ করছি। সেই সাথে তরুন প্রজন্মের জন্য দুঃখ হচ্ছে।
আতিকুর রহমান ভূইয়া নামে একজন লিখেছেন গতকালকে গিয়েছিলাম তাদের এই বেহায়াপনা কার্যকলাপ দেখে সাথে সাথে বের হয়ে আসি।
হোসেন আলী নামে আরেকজন লিখেছেন মনে হচ্ছে অর্থ কামানোর পাশাপাশি যুব সমাজ ধ্বংসের অভিনব কায়দা। প্রশাসনের আশু হস্তক্ষেপ জরুরি।
মোঃ হারিছ লিখেছেন নাউজুবিল্লাহ। দিন দিন মানুষ কেমনে বিবেকহীন হয়ে যায় বুঝা বড়ই কঠিন।
এছাড়াও অনেকেই প্রশাসনের দৃষ্টি আকর্ষণ করেছেন।

সমালোচিত বিষয়গুলো সম্পর্কে জানতে চাইলে গ্রীন হলিডে পার্কের মালিক, মেহেরপাড়া ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান, মেহেরপাড়া ইউনিয়ন বিএনপির সাবেক সভাপতি মামুনুর রশিদ সাজন বলেন এখন অনুষ্ঠান চলছে তাই বক্তব্য দিতে পারব না। পরে মুঠোফোনে কল দিলে তিনি বলেন আপনার কাছে কি কেউ বিচার দিয়েছে? আমি পরে কথা বলব বলে কেটে দেন।

বিষয়টি সম্পর্কে মাধবদী থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ রকিবুজ্জামানের নিকট জানতে চাইলে তিনি বলেন আপনারা আগে নিউজ করেন পরে আমরা ব্যবস্থা গ্রহন করব।

মুহাম্মদ মুছা মিয়া
মাধবদী, নরসিংদী।
০১৯১২-৪৮৫০৮৫

সামাজিক যোগাযোগ এ শেয়ার করুন

একই বিভাগের আরও সংবাদ
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত © ২০২১ নরসিংদীর আওয়াজ
ডিজাইন ও ডেভেলপমেন্ট @ ইজি আইটি সল্যুশন